শুক্রবার, মে ৭

লকডাউন হচ্ছে ফেনীর ৮ এলাকা

‘রেড জোন’ বিবেচনা করে ফেনীতে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) দ্রুত বিস্তার রোধে ৮ এলাকা লকলক ডাউন হচ্ছে। ফলে করোনার প্রকোপ থেকে জনসাধারণের সুরক্ষায় আগামীকাল বুধবার থেকেই এটি কার্যকর করা হবে, এসব এলাকাকে লকডউন করতে স্বাস্থ্য বিভাাগ প্রস্তাব করেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সরকারের শীর্ষ পর্যায় থেকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে দেশের তিনটি বিভাগ, ৫০টি জেলা ও ৪০০টি উপজেলাকে পুরোপুরি লকডাউন (রেড জোন বিবেচিত) দেখানো হচ্ছে। আংশিক লকডাউন (ইয়েলো জোন বিবেচিত) দেখানো হচ্ছে পাঁচটি বিভাগ, ১৩টি জেলা ও ১৯টি উপজেলাকে। আর লকডাউন নয় (গ্রিন জোন বিবেচিত) এমন জেলা দেখানো হচ্ছে একটি এবং উপজেলা দেখানো হচ্ছে ৭৫টি।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যমতে, মঙ্গলবার পর্যন্ত ৩শ ২০ জন করোনা আক্রান্ত হন। শনাক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে সদরের ১২৬ জন, সোনাগাজীতে ৩৯ জন, দাগনভূঞায় ৯৩ জন, ছাগলনাইয়ায় ৩৬জন, ফুলগাজীতে ৯ জন ও পরশুরামে ১০ জন রয়েছে। এদের মধ্যে সুস্থ হয়ে ৬৮ জন ও মারা গেছে ৯ জন। ৭ জন পাশ্ববর্তী চট্টগ্রাম, মিরসরাই, চৌদ্দগ্রাম ও সেনবাগের বাসিন্দা। ফেনী জেনারেল হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষা দিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, g সদস্য, গনমাধ্যমকর্মী রয়েছেন।প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে এ পর্যন্ত জেলায় মারা যাওয়া ৯ জন।

অত্যাধিক ঝুঁকি বিবেচনায় ফেনী পৌরসভার রামপুর, ডাক্তার পাড়া।, শান্তি কোম্পানি রোড, দাগনভূঁঞা পৌরসভা, ইয়াকুবপুর ইউনিয়ন, পূর্বচন্দ্রপুর ইউনিয়ন, রাজাপুর ইউনিয়ন ও ছাগলনাইয়া পৌরসভাকে লকডাউন ঘোষণার প্রস্তাব করা হয়েছে।

বুধবার থেকে লকডাউন কার্যকর করা হচছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সংশ্লিষ্ট এলাকায় মাইকিং করে প্রচারনা চালানো হবে।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *